মোবাইলে ছবি এডিট করার সফটওয়্যার

 


মোবাইলে ভিডিও/ছবি এডিট করার সফটওয়্যার 


আপনারা যদি কেউ মোবাইলে ভিডিও এডিট করার সফটওয়্যার সম্পর্কে জানতে চান তাহালে আজকের এই আর্টিকেলটি আপনার জন্য। কারণ, এখানে আমি এমন কিছু এন্ড্রয়েড অ্যাপস (Android apps) এর বিষয়ে বলবো যেগুলোর মাধ্যমে অনেক সহজে মোবাইল দিয়ে ভিডিও এডিট করতে পারবেন।

আপনারা এই এডিটিং অ্যাপস গুলো ব্যবহার করে প্রফোসানাল ভাবে ভিডিও এডিট করতে পারবেন। যেমন এডিটিং শুধু ভালো কম্পিউটারে এডিটিং সফটওয়্যার দ্বারা সম্ভব। (best free video editing app for android)

আপনারা ইউটিউবের ভিডিও এডিট করার জন্য এই অ্যাপস বা সফটওয়্যার গুলো হবে সেরা। আপনারা যদি নিজের ইউটিউবের জন্য ভিডিও তৈরি করেন তবে, সেগুলো এডিট করার জন্য করার জন্য দামি কোনো এডিটিং সফটওয়্যার ব্যবহার করতে হবে না।

Google Play store এ আপনারা এমন অনেক ভালো ভালো অ্যাপস পেয়ে যাবেন যেগুলোর মাধ্যমে নিজের ভিডিও গুলো প্রফোসানাল ভাবে এডিট করে আকর্ষণীয় করতে পারবেন।

এই এপস গুলোর মাধ্যমে ভিডিওতে background music দেওয়া, টেক্সট (text) লেখা, headline যুক্ত করা, বিভিন্ন ধরনের video effect ব্যবহার করা, ভিডিওর বিভিন্ন অংশ কাটা, thumbnail যোগ করা, আলদা আলদা ভিডিও একসাথে যোগ করা।

এছাড়া আরো অনেক কিছু এই video editing app for android গুলোর মাধ্যমে করতে পারবেন। মোবাইলে এই সব ছোট ছোট ভিডিও এডিটিং এপস গুলো আপনার অনেক কাজে আসবে যদি আপনি একজন ইউটিউবার এবং android mobile থেকে এডিটিং করতে চান।


১. Kinemaster – Pro

kinemaster এমন একটি ভিডিও এডিটিং অ্যাপ্লিকেশন যার মাধ্যমে আপনারা advance এবং professional ভাবে ভিডিও তৈরি করতে পারবেন। এই এপস ব্যবহার করে আপনারা মোবাইলে কম্পিউটারের মতো ভিডিও বানাতে পারবেন।


মনে রাখবেন এই এন্ড্রয়েড সফটওয়্যারটি অনেক শক্তিশালী এবং সব থেকে সেরা user interface গুলো রয়েছে। এখান থেকে সহজে এর advance ফাস্কশন গুলো গুলো ব্যবহার করতে পারবেন। অন্য ফিচারস গুলোর সাথে এখানে পাবেন ভিডিও মাঝে মাঝে টেক্সট (text) লেখা, subtitle দেওয়া, effect দেওয়া ইত্যাদি।


২. FilmoraGo – Free Video Editor

FilmoraGo হলো একটি অনেক শক্তিশালী ভিডিও এডিটিং সফটওয়্যার, যা অনেক বড় বড় প্রফোসানাল ইউটিউবাররা ব্যবহার করেন। এখানে সাধারণ ফিচারস থেকে শুরু করে এ্যাডভান্স ফিচারস গুলো পেয়ে যাবেন।


যেমন- ভিডিও সাথে effects এবং music যুক্ত করা, title যোগ করা, ভিডিও theme বেঁচে নেয়া, video cutting এবং trimming এর মতো সকল ধরনের editing options গুলো পাবেন।

FilmoraGo আপনারা সম্পর্ন ফ্রিতে ব্যবহার করতে পারবেন এবং এর সকল ফিচারস গুলো ফ্রি ভার্সনে পেয়ে যাবেন। মনে রাখবেন, FilmoraGo app এ ভিডিও এডিট করে অনেক সহজে নিজের মোবাইলের গ্যালারিতে সেভ (save) করতে পারবেন।

FilmoraGo এর কিছু অসাধারণ ফিচারস

  • ভিডিও এডিট অবস্থায় real time video play করে দেখতে পারবেন।
  • অনেক ধরনের প্রফোসানাল এডিটিং টুলস আপনারা পেয়ে যাবেন।
  • বিভিন্ন ধরনের templates এবং video efforts পাবেন।
  • বেশি ভাগ ফিচারস গুলো সম্পর্ন ফ্রিতে পাবেন।

FilmoraGo app মানুষের কাছে অনেক প্রচালিত এবং অনেক বড় বড় YouTuber রা এই application ব্যবহার করে মোবাইলে ভিডিও এডিট করার জন্য।

৩. PowerDirector

উপরের বলা ভিডিও এডিট করার সফটওয়্যার গুলোর মতো PowerDirector এর মাধ্যমে ভিডিওকে অনেক আকর্ষণীয় এবং প্রফোসানাল ভাবে এডিট করতে পারবেন।


PowerDirector app আপনারা অনেক ধরনের আলদা আলদা কিছু advanced video editing options গুলো পাবেন, যেগুলো অন্য অ্যাপস গুলোতে পাবেন না। আমি নিজেও ইউটিউব ভিডিও এডিট করার জন্য এই অ্যাপ বা সফটওয়্যার ব্যবহার করি।

এর মাধ্যমে আপনারা ভিডিওর ব্যাকগ্রাউন্ড (video background) পরিবর্তন, ভিডিও কাটা, অনেক গুলো ভিডিও এক সাথে যুক্ত করা, স্লো মোশনে এডিট করা, নানা ধরনের ভিডিও effect, ফটো দিয়ে ভিডিও তৈরি করা, বিভিন্ন ধরনের প্রফোসানাল টুলস সহ আরো অনেক ধরনের function গুলো পেয়ে যাবেন।

Video edit করার পরে আপনি সেই ভিডিও ফাইল 720 P, Full HD 1080 P এবং 4K format এ নিজের এন্ড্রয়েড (android) মোবাইলে সেভ (save) করতে পারবেন। এক কথায় ভিডিও এডিট  করার সেরা সফটওয়্যার বা এপস হিসাবে আপনি PowerDirector এর নাম বলতে পারেন।

৪. Adobe Premiere Clip

আপনি যদি মোবাইলে দ্রুত সময়ে ভিডিও এডিট করতে চান তাহালে adobe premiere clip অনেক ভালো এবং quick service থাকে। এটা সম্পর্ন ফ্রি এবং এর মাধ্যমে প্রফোসানাল কোয়ালাটির ভিডিও এডিটিং করতে পারবেন।


এটার সব থেকে বড় সুবিধা হলো automatic video creation ফাস্কশনের দ্বারা যে কোনো ভিডিও বা ফটো সিলেক্ট করে automatically ভিডিও এডিট করতে পারবেন।

তাছাড়া এই সফটওয়্যারের কিছু advances editing tools ব্যবহার করে নিজের পছন্দমত ভিডিও তৈরি করতে পারবেন। যেমন- video cutting, add music, effects, filters, trimming,  photo motion, transitions ইত্যাদি অনেক ধরনের অপশন পাবেন।

৫. Quick video editor

মোবাইলে দ্রুত ভিডিও এডিট করান জন্য আলদা রকমের একটি এপস হলো quick video editor. আপনি নিজের মোবাইলের গ্যালারী থেকে যেকোনো ভিডিও এবং ফটো বেঁচে নিয়ে সেটাকে সুন্দর এবং আকর্ষণীয় ভাবে এডিট করতে পারবেন।


তাছাড়া এই অ্যাপের মাধ্যমে আপনি automatically যেকোনো ভিডিও এডিটিং করতে পারবেন। এছাড়া এর কিছু সাধারণ এডিটিং টুলস রয়েছে যেমন- ভিডিও ক্রপ (crop) করা, এফেক্টস (effects) লাগানো, ভিডিওতে টেক্সট (video text) ব্যবহার করা ইত্যাদি টুলস সহ আরো অনেক ধরনের টুল (tool) পাবেন।


শেষ কথা,,

তো বন্ধুরা আজ আমাদের এই পোস্টের মাধ্যমে আপনাকে জানানো হলো ভিডিও/ছবি জোড়া লাগানোর সফটওয়্যার মোবাইল এবং কম্পিউটার দিয়ে সম্ভব।

আপনি যদি ফটো জোড়া লাগাতে আগ্রহী থাকেন। তাহলে অবশ্যই যে কোন অ্যাপস বা সফটওয়্যার ডাউনলোড করে নিতে পারেন। আর আমাদের দেওয়া আর্টিকেল আপনার কাছে কেমন লাগলো অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন।

আরো পড়ুন:

  1. আই ফোন সারা পৃথিবীতে বিখ্যাত কোনো 
  2. প্রসেসর কি 
  3. বাংলাদেশে dslr ক্যামেরার দাম 
  4. সফ্টওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং কি ?
  5. বিশ্বের সেরা 11টি জনপ্রিয় অনলাইন মোবাইল গেম
  6. নতুন গেমিং ল্যাপটপ 2022
  7. নতুন গেমিং পিসি 2022 |
  8. ২০ থেকে ৩০ হাজার টাকা দামের মধ্যে ভালো ফোন 
  9. কম্পিউটার ভাইরাস কি ? কম্পিউটারে ভাইরাস থেকে রক্ষা পাওয়ার উপায় কি ?
  10. 10000-এর নীচে সেরা ফোন |


0/পোস্ট এ কমেন্ট/Comments