বন্ধ হচ্ছেনা অনিবন্ধিত ফোন – সরকারের নতুন সিদ্ধান্ত - Unregistered phones are not being stopped - a new decision of the government



 গত ১ বছর ধরেই বাংলাদেশে বহুল আলোচিত ছিল আনঅফিসিয়াল ফোন বন্ধ হয়ে যাওয়ার বিষয়টি। এবছর পহেলা অক্টোবর থেকে অনিবন্ধিত মোবাইল হ্যান্ডসেটগুলো থেকে নেটওয়ার্ক বন্ধ করে দেওয়ার প্রক্রিয়া শুরুর কথা ছিল। এমনকি আনঅফিসিয়াল ফোন নিবন্ধন করার নিয়মও জানিয়ে দিয়েছিল বিটিআরসি। 

গতকাল থেকে দেশের বিভিন্ন সংবাদপত্রের প্রতিবেদন থেকে আমরা জানতে পারছি যে, সরকার এখন অনিবন্ধিত ফোন বন্ধ করার সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসছে।

দেশের শীর্ষস্থানীয় অনলাইন সংবাদ মাধ্যম বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম লিখেছে, ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেছেন, “প্রক্রিয়াটি  চালুর পর অনেক মানুষ ভোগান্তির শিকার হচ্ছে। বাজারে বিক্রি হওয়া বেশিরভাগ হ্যান্ডসেট হল ফিচার ফোন। বেশিরভাগ সাধারণ গ্রাহক জানেন না কীভাবে হ্যান্ডসেটের আইএমইআই নম্বর যাচাই করতে হবে।”


বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার আরো বলেছেন, “আমরা মোবাইল নিবন্ধন করার জন্য ডেটাবেইজ করেছি, ফোন বন্ধ করার জন্য এই ডাটাবেইজ করা হয়নি। জনগণের যাতে ভোগান্তি না হয় সে জন্য নেটওয়ার্কে যুক্ত থাকা কোনো মোবাইল যাতে বন্ধ না হয়, বিটিআরসিকে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।”

বিবিসি বাংলা জানাচ্ছে, ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেছেন, “প্রধানমন্ত্রীর তথ্যপ্রযুক্তি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় আমাদের বলেছেন, জনগণের ভোগান্তির কারণ হয়, এমন কোনো কাজ আমরা করবো না। তার পরামর্শে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।”

বিবিসি বাংলা লিখেছে, তাদেরকে মন্ত্রী আরো বলেন, বাংলাদেশের সিম যেকোন মোবাইলে ব্যবহার করলে স্বয়ংক্রিয়ভাবে ঐ মোবাইল নিবন্ধন হয়ে যাবে। 

অপরদিকে অবৈধ উপায়ে শুল্ক ফাঁকি দিয়ে যেসব ফোন দেশে আনা হবে সেগুলোর ব্যাপারে মন্ত্রী বিবিসি বাংলাকে বলেছেন, “যারা লাগেজে করে মোবাইল বিদেশ থেকে আনেন তারা দুটো ফোন শুল্কমুক্ত আনতে পারেন। আবার ছ’টা ফোন আনতে গেলে শুল্ক দিতে হয়। আমাদের মোবাইলের আইএমইআই নম্বরে ডাটাবেস তৈরির যে কাজ চলছে সেটা অব্যাহত থাকবে।”

সুতরাং রাজস্ব বোর্ড চাইলে পরে এই ডেটা ব্যবহার করতে পারবে বলে মন্তব্য করেছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী। 

সূত্রঃ বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম , বিবিসি বাংলা

0/পোস্ট এ কমেন্ট/Comments